SIKDER ONLINE

Trusted news blog of the World.

আবিস্কার হলো কিডনির পাথর গলাতে সক্ষম এমন এক পাতা..!

তুলসী গাছ আমাদের সবার পরিচিত একটি ঔষধি-গাছ। এ গাছের পাতায় বহু রোগ সারানোর উপকারি গুণ রয়েছে।তুলসী পাতার রস বা চা প্রতিদিন একগ্লাস করে পান করলে, আমাদের কিডনিতে পাথর হওয়ার আশংকা কমে যায়। আর যদি কিডনিতে পাথর জমে তাহলে তুলসী পাতার রস টানা ৬ মাস পান করলে সেই পাথর গলে প্রস্রাবের সঙ্গে বেরিয়ে যায়।

এছাড়া প্রস্রাবে জ্বালা কমায়, হজমকারক, সর্দি, কাশি, কৃমি ও কফ গলাতে তুলসী পাতা দারুন কাজ করে। এটি ক্ষত সারাতে এন্টিসেপটিক হিসেবেও কাজ করে।তুলসি-পাতা দিয়ে চা ও মিশ্রণ তৈরির কয়েকটি প্রস্তুত প্রণালী নিম্নে দেয়া হলো :
[adToAppearHere]
ভেষজ তুলসী-চা

উপকরণ সমুহ : এক টুকরো আদা, গোলমরিচ, লবঙ্গ, তুলসী পাতা, দারুচিনি, এলাচ পরিমাণ মতো।

কিভাবে প্রস্তুত  করবেন : পরিমাণ মতো পানিতে উপরের উপকরণ গুলো মিশিয়ে জ্বাল দিন।১০ মিনিট পর নামিয়ে ছেকে পান করতে পারেন।

এই ধরনের ভেষজ তুলসী চা আপনার রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে এবং ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া রোগ থেকে বাঁচানোর ক্ষমতা রাখে।

তুলসী পানি

উপকরণ সমুহ : দুই কাপ পানি ও কয়েকটি পাতা।

কিভাবে প্রস্তুত  করবেন: একটি পাত্রে দুই কাপ পানি নিন। এর সঙ্গে কয়েকটি তুলসি পাতা সিদ্ধ করুন। ফুটে উঠলে নামিয়ে পান করতে পারেন। এই মিশ্রণটি গলা ব্যথা ও খুস খুসে কাশি কমিয়ে আপনাকে আরাম দেবে।

তুলসী-চা

উপকরণ সমুহ : ১০-১৫টি তুলসী পাতা, গুড়, পানি ও লেবুর রস।

কিভাবে প্রস্তুত  করবেন: প্রথমে গুড় ও তুলসী পাতা ভাল করে বেটে নিন। এর মধ্যে দেড় কাপ পানি ও এক চামচ লেবুর রস মিশিয়ে চুলায় বসান। মিশ্রণটি ফুটে উঠলে তা নামিয়ে ফেলুন। এই চা পান করলে শীতের মধ্যে আপনার শরীর উষ্ণ থাকবে।
[adToAppearHere]
হার্বাল জুস

উপকরণ সমুহ : আজওয়াইন, তুলসীপাতা, জিরা, আমচুর গুঁড়া, লবণ এবং পুদিনা পাতা পরিমাণ মতো।

কিভাবে প্রস্তুত  করবেন: চার কাপ পানিতে উপরের উপকরণ গুলো মিশিয়ে ১০-১৫ মিনিট জ্বাল দিন। এর পর পান করুন। এই জুস প্রতিদিন পান করেল হজম শক্তি বাড়বে এবং পানি শূন্যতা থেকেও আপনাকে রক্ষা করবে।

তথ্য সুত্র: কিডনীর পাথর

আরো জানুন:

(১)  আমলকীর গুনাগুন যা জানলে আপনার অবাক মনে হতেই পারে।

(২) অভ্যাস করুন সুস্থ থাকুন।

(৩) জঙ্গী সংগঠন আই এস আই এর হঠাৎ থেমে যাবার কাহিনী

 

Please enable JavaScript to view the comments powered by Disqus.