SIKDER ONLINE

Trusted news blog of the World.

আবুল মাল মুহিতের অবসরে যাওয়া

এ বছরের শেষে অর্থাৎ ডিসেম্বর ২০১৭ তে অবসরে যাবার কথা বলছেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। যদিও তিনি আগে একাধিকবার অবসরের কথা জানালেও শেষ-মেষ তার অবসর নেয়া হয়ে উঠেনি বলে তিনি তার বক্তব্যে তুলে ধরেন। আবুল মাল মুহিতের অবসরে যাওয়া ।

অগ্রণী ব্যাংকের বার্ষিক সম্মেলনে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি জানান, ‘সত্যিকার অর্থে  জানি আমি অবসরে যাচ্ছি, এটা হতে পারে এ বছরের ডিসেম্বর মাস।’

তিনি আরো বলেন, “বদরুদ্দোজা চৌধুরী সাহেব এর মনে হয় অবসর সম্পর্কে  কোনো ধারণা নেই; এভাবে, আমি তাঁকে উপদেশ দিতে চাই, জীবনে একটা সময় আসে, তখন অবসরে যাওয়াই আমাদের জন্য খুব ভালো।

আবুল মাল মুহিতের অবসরে যাওয়া ।  আর অবসরে যেভাবে থাকা যায়, সেভাবেই থাকা উচিত।”

বক্তব্যের শুরুতেই অর্থমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশের আর্থিক খাতের অবস্থা ভালো কি-না সে বিষয়ে প্রশ্ন আছে; পত্রিকায় দেখলাম এ দেশের একজন প্রাক্তন রাষ্টপতি প্রধানমন্ত্রীকে উপদেশ দিয়েছেন দু’জন ব্যক্তিকে যেখানে দায়িত্বটা গুরুত্বপূর্ণ না; সেখানে পাঠিয়ে দিতে।

 Know it : খালেদা পরবর্তী বিএনপির হাল হকিকত

সে দু’জন ব্যক্তির একজন আমার বন্ধু, আমাদের সুযোগ্য শিক্ষামন্ত্রী; আর দুই নম্বর ব্যক্তি আমি। বদরুদ্দোজা চৌধুরী উপদেশ দেন, তারা দুজনেই দেশে কিছু কাজ-টাজ করেছেন।

তাই, অবসর না নিলে নিরাপদ কোনো মন্ত্রণালয়ের কোথাও পাঠিয়ে দিতে পারেন; আবুল মাল মুহিতের অবসরে যাওয়া ।

সাবেক রাষ্ট্রপতি এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী গত শুক্রবার অর্থমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীর কাজের সমালোচনা করে তাঁদের নিরাপদ মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়ে দেওয়ার আহ্বান জানান।

আলোচনা প্রস্তাব অনুষ্ঠানে মুহিত  জানান, এখানে এসে প্রথমে মনে হয়েছিলো রিটায়ারমেন্ট’র ওপরে বক্তব্য করবো; রিটায়ারমেন্ট কিভাবে নেয়া উচিত, কখন করা উচিত, তার উপর বিস্তারিত বক্তব্য রাখবো।

এর একটি বিশেষ কারণ হল, আমি এখন সত্যিকারেই বুঝতে পারছি রিটায়ারমেন্ট এর সময় এসেছে; তাই সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছি, এই বছরের ডিসেম্বরে রিটায়ারমেন্ট করব।

Try to know the news: আইএসআই এর সেকাল একাল

অগ্রণী ব্যাংকের বার্ষিক সম্মেলনে রাজধানীর লা মেরিডিয়ান হোটেলে ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামস উল ইসলামের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রি।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আবদুল মান্নান, বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর; ফজলে কবির, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সচিব ইউনুসুর রহমান ও অগ্রণী ব্যাংকের চেয়ারম্যান জায়েদ বখত।

Please enable JavaScript to view the comments powered by Disqus.